বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:০৯ অপরাহ্ন

ad 02

নকশাদার আসবাব পরিষ্কার

নকশাদার আসবাব পরিষ্কার

নাঈম সিনহা
শীতে বাতাসে ধুলাবালির পরিমাণ বেড়ে যায়। ধুলা জমে ঘরের আসবাবেও। নিয়মিত পরিষ্কার না করলে ঘরে জমে থাকা ধুলা থেকে ডাস্ট অ্যালার্জি বা অ্যাজমার সমস্যা হতে পারে। আসবাব পরিষ্কারের ক্ষেত্রে নকশাদার অংশ নিয়ে একটু ঝামেলায় পড়তে হয়। জেনে নিন কিভাবে পরিষ্কার করবেন নকশাদার আসবাবের ময়লা।

নকশাদার কাঠ

নকশাদার আসবাব প্রতিদিন নরম শুকনো কাপড় বা ঝাড়ন দিয়ে মুছতে হবে। কাঠের নকশার খাঁজকাটা অংশ ভালোভাবে পরিষ্কারের জন্য নরম ব্রাশ ব্যবহার করুন। তারপর কাপড় দিয়ে মুছে নিন। নকশাদার আসবাব নিয়মিত পরিষ্কার না করলে ধুলা-ময়লা জমে দাগ হয়ে যায়। তারপর সেই দাগ তোলা বেশ ঝামেলার কাজ হয়ে দাঁড়ায়। আর ফার্নিচারের বার্নিশেরও ক্ষতি করে। কাঠের নকশাদার অংশ থেকে ময়লার দাগ তুলতে ব্রাশ প্রথমে পানিতে ভিজিয়ে নিন। তারপর ভালো করে ঝেড়ে বাড়তি পানি ফেলে দিয়ে আধাভেজা ব্রাশ দিয়ে কাঠের নকশা পরিষ্কার করুন। ফ্যান ছেড়ে দ্রুত শুকিয়ে নিন। কাঠের আসবাবের সঙ্গে গদি আঁটা থাকলে সেটি পরিষ্কার করতে ভ্যাকুয়াম ক্লিনার ব্যবহার করা ভালো। ভ্যাকুয়াম ক্লিনার সব কোনা থেকে ধুলা-ময়লা টেনে বের করে আনে। এ ছাড়া কাঠের নকশাদার আসবাব প্রতিবছর একবার বার্নিশ করালে কাঠের আসবাবের ঝকঝকে-তকতকে ভাব বজায় থাকে। কাঠের আসবাবে জেল পেন বা মার্কারের কালি লেগে গেলে টুথপেস্ট লাগিয়ে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন। তারপর নরম সুতি কাপড় দিয়ে ঘষে তুলে ফেলুন। দাগ হালকা হয়ে যাবে।

বোর্ডের আসবাব

বিভিন্ন ধরনের বোর্ডের আসবাবেও এখন বেশ নকশাদার ডিজাইন হচ্ছে। বোর্ডের আসবাব পরিষ্কারের জন্য শুকনো কাপড় ভালো। প্রতিদিন একবার মুছে রাখলে আসবাব দীর্ঘদিন নতুনের মতো থাকবে। বোর্ডের ফার্নিচারে কখনো কখনো সাদাটে ছত্রাক দেখা যায়। এমন হলে স্প্রের বোতলে ভিনেগার ও সমপরিমাণ পানি মিশিয়ে স্প্রে করুন। এরপর সঙ্গে সঙ্গে শুকনো নরম কাপড় দিয়ে মুছে নিন। তবে এই মিশ্রণ নিয়মিত ব্যবহার করা ঠিক নয়। আসবাবের রঙের ক্ষতি হতে পারে।

বেত ও বাঁশ

বেত বা বাঁশের আসবাব পরিষ্কার করা বেশ ঝক্কির। ফাঁকে ফাঁকে জমে থাকা ময়লা সময় ও ধৈর্য নিয়ে পরিষ্কার করতে হয়। তবে নিয়মিত পরিষ্কার করলে খুব বেশি কষ্ট হবে না। বেত বা বাঁশের আসবাব পরিষ্কারের জন্য নরম ঝাড়ন ও কাপড় দুটিই ব্যবহার করতে হবে। নকশার ফাঁকে বা কোণের অংশে ঝাড়ন দিয়ে ঝেড়ে তারপর পরিষ্কার কাপড় দিয়ে মুছে ফেলতে হবে।

রট আয়রন

রট আয়রন কিংবা স্টিলের আসবাব নিয়মিত নরম শুকনো পরিষ্কার কাপড় দিয়ে মুছে ফেলতে হবে। মাঝেমধ্যে আধাভেজা সুতি কাপড় ব্যবহার করা যেতে পারে। তারপর সঙ্গে সঙ্গে আরেকটি শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে নিলে মরিচা পড়ার ভয় থাকবে না।

রট আয়রনের নকশাদার অংশ পরিষ্কারের জন্য ছোট নরম ব্রাশ ব্যবহার করলে ভালো ফল পাবেন। প্রথমে ধুলা পরিষ্কার করে আরেকটি পরিষ্কার ব্রাশে অল্প তেল মাখিয়ে ব্রাশ করলে স্টিল বা রট আয়রনের আসবাবে চকচকে ভাব আসবে। এ ধরনের ফার্নিচারে দাগ লাগলে গ্লাস ক্লিনার স্প্রে করে শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন। দাগ থাকবে না।

টিপস

♦ আসবাব পরিষ্কার করার জন্য ব্যবহূত সরঞ্জাম যেমন—কাপড়, ব্রাশ, ঝাড়ন নিয়মিত পরিষ্কার করুন। তা না হলে ফার্নিচার পরিষ্কার না হয়ে আরো ময়লা হবে।

♦ ফার্নিচারের নকশা পরিষ্কারে কোনো কারণে ভেজা ডাস্টার ব্যবহার করতে হলে সঙ্গে সঙ্গে আসবাব শুকানোর ব্যবস্থা করতে হবে। ফ্যানের বাতাস কিংবা হেয়ার ড্রায়ার দিয়েও শুকিয়ে নিতে পারেন।

♦ কাজ শেষে আসবাব পরিষ্কারে ব্যবহূত সরঞ্জামগুলো একসঙ্গে গুছিয়ে রাখুন। পরের দিনের কাজের সময় আলাদা করে খুঁজতে হবে না।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

ad03




– প্রধানমন্ত্রীর ১০টি বিশেষ উদ্যোগ বিষয়ক ই-বুক –

নিউজ ৭১ অনলাইন ২০১১সাল থেকে নিয়মিত প্রকাশ হচ্ছে।। আবেদিত নিবন্ধন সিরিয়াল নং ৯৩
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
Don`t copy text!