নিউজ রুম এডিটর, নিউজ৭১অনলাইন

ইউএসটিসিতে শিক্ষকের গায়ে কেরোসিন, ৪ জনের শাস্তি

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রামের (ইউএসটিসি) প্রবীণ শিক্ষক ড. মাসুদ মাহমুদের গায়ে কেরোসিন ঢেলে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় ২১ শিক্ষার্থী জড়িত বলে অভিযোগ করা হলেও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ চারজনের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পাওয়ার পর কর্তৃপক্ষ এ ব্যবস্থা নিয়েছে বলে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়। এরপর বিকেলে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ঘটনার দিনই মূল অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন ও ইউএসটিসির এ পদক্ষেপ প্রত্যাখ্যান করেছেন অধ্যাপক মাসুদ মাহমুদ। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেছেন, এই তদন্ত অভিযুক্ত শিক্ষার্থীদের ‘খুশি করার’ তদন্ত। পুলিশের ভূমিকায়ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বরেণ্য এই শিক্ষক।

চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ওই চার শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছে ইউএসটিসি কর্তৃপক্ষ। অধ্যাপক মাসুদ মাহমুদকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের পদক্ষেপ জানাতে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন প্রক্টর কাজী নুর ই আলম সিদ্দিকী। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন সহকারী প্রক্টর এস এম সোয়েব, মোহাম্মদ শহীদুল ইসলাম, মোহাম্মদ আবদুর রশিদ, বৈশাখী বিশ্বাস ও রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) দিলীপ কুমার বড়ুয়া প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, মূল অভিযুক্ত মাহমুদুল হাসানকে আজীবন বহিষ্কার করা হয়েছে। মো. শেখ রাসেল শাহেন শাহ, মো. মইনুল আলম ও মোহাম্মদ আলী হোসাইন নামের অন্য তিন ছাত্রকে এক বছরের জন্য বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইউএসটিসি। তবে এই তিন শিক্ষার্থীকে আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য ১৫ জুলাই পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছে। তাঁদের মধ্যে মইনুলকে গতকাল বিকেলে নগরের খুলশী এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মাহমুদুল হাসান ইংরেজি বিভাগের স্নাতকোত্তর শ্রেণির দ্বিতীয় সেমিস্টারের ছাত্র। মইনুল ও আলী তাঁর সহপাঠী। আর শেখ রাসেল একই বিভাগের স্নাতক সপ্তম সেমিস্টারের ছাত্র।

সংবাদ সম্মেলনে আরো বলা হয়, ইউএসটিসি কর্তৃপক্ষ তাত্ক্ষণিক পাঁচ সদস্যের একটি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন তদন্ত কমিটি গঠন করে এবং ওই তদন্ত কমিটি গত ৮ জুলাই উপাচার্যের কাছে প্রতিবেদন দাখিল করে। তদন্ত কমিটি সর্বোচ্চ অপরাধকারী শিক্ষার্থী ও তাঁর অন্য তিন সহযোগী অপরাধকারী শিক্ষার্থীর অপরাধের মাত্রা শনাক্ত করে প্রতিবেদন দিয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে তাত্ক্ষণিকভাবে ওই দিনই বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা কমিটির জরুরি সভা ডেকে প্রতিবেদনের আলোকে অপরাধী শিক্ষার্থীদের অপরাধের মাত্রা গুরুত্বের সঙ্গে বিশ্লেষণ করে এসব সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।

প্রক্টর কাজী নুর ই আলম সিদ্দিকী জানান, তদন্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে গ্রেপ্তার হওয়া মাহমুদুল হাসানকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে। এ ছাড়া অন্য তিন ছাত্রকে এক বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে। তবে তাঁদের আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য ১৫ জুলাই পর্যন্ত সময় দিয়েছে ইউএসটিসি কর্তৃপক্ষ।

ইউএসটিসি প্রশাসনের এ পদক্ষেপে হতাশা ব্যক্ত করে শিক্ষক মাসুদ মাহমুদ বলেন, ‘তদন্ত কমিটি ঘটনার শিকার হিসেবে আমার বক্তব্য নিয়েছিল। আমি সুনির্দিষ্টভাবে ২১ জনের নাম তাদের বলেছিলাম, যারা অতীতে আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলেছিল। যে মেয়েরা আমার বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির মতো অসত্য অভিযোগ এনেছিল, যারা কোনো দিন আমার ক্লাসও করেনি, সেই মেয়েগুলোর বিরুদ্ধে তো কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হলো না। তারাই তো পরে আমাকে অপমান করেছে। ইন্ধনদাতাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হলো না। এই তদন্ত আমি প্রত্যাখ্যান করছি। এটা আমাকে অপমান করার সঙ্গে জড়িত ছাত্রছাত্রীদের খুশি করার তদন্ত।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সংবাদ সম্মেলনে প্রক্টর কাজী নুর বলেন, ‘চারজনের বাইরে কারও বিরুদ্ধে সেভাবে ঘটনায় জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তদন্ত কমিটি চারজনকেই শনাক্ত করেছে। ছাত্রছাত্রীরা তো এ দেশের নাগরিক। তারা তো মত প্রকাশের অধিকার রাখে। সুনির্দিষ্ট তথ্য না পেলে, মত প্রকাশের জন্য তো কারো বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া যায় না। এ ছাড়া পুলিশ তদন্ত করছে। প্রমাণ পেলে তারা নিশ্চয়ই ব্যবস্থা  নেবে।’

পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলে ড. মাসুদ মাহমুদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘ভিকটিম হিসেবে গত ৯ দিনে পুলিশ আমার কাছ থেকে কোনো বক্তব্য নেয়নি। আমি নিজ থেকে তাদের বলেছি, ঘটনার সঙ্গে ২১ জন জড়িত। তাদের নামও বলেছি। কিন্তু পুলিশ একজনকে গ্রেপ্তারের পর আর কারো বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না।’

জানতে চাইলে খুলশী থানার ওসি প্রণব চৌধুরী কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘একজনকে আমরা তাঁর প্রকাশ্য স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে ইউএসটিসির ভিসির সামনে থেকে গ্রেপ্তার করেছি। রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে সে জানিয়েছে, ঘটনা সে একাই ঘটিয়েছে। তবে আন্দোলনে তার সঙ্গে আরো কয়েকজন ছিল। আমরা তার দেওয়া তথ্য যাচাই-বাছাই করছি। আর ইউএসটিসি কর্তৃপক্ষ তাদের তদন্তে আরো কেউ যদি জড়িত থাকার তথ্য পায়, সেটা আমাদের জানানো উচিত। আমরা অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেব।’ মইনুলকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ওসি।

উল্লেখ্য, গত ২ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয় অফিস থেকে টেনে বের করে রাস্তায় নিয়ে গায়ে কেরোসিন ঢেলে প্রবীণ শিক্ষক অধ্যাপক ড. মাসুদ মাহমুদকে লাঞ্ছিত করে বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল শিক্ষার্থী। ওই দিন রাতেই ইউএসটিসির ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার দিলীপ কুমার বড়ুয়া বাদী হয়ে খুলশী থানায় ‘কেরোসিন ঢেলে শিক্ষককে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে’ মামলা করেন। মামলায় শুধু মাহমুদুলকে আসামি করা হয়।

ঘটনা তদন্তে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ প্রথম তিন সদস্যের একটি কমিটি করলেও তাঁরা তদন্ত করতে অস্বীকৃতি জানান। পরে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি করা হয়।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার পর অবসরে গিয়ে অধ্যাপক মাসুদ মাহমুদ প্রায় তিন বছর আগে ইউএসটিসিতে উপদেষ্টা অধ্যাপক হিসেবে ইংরেজি বিভাগে যোগ দেন। গায়ে কেরোসিন ঢেলে দেওয়ার ঘটনার পর ইউএসটিসি কর্তৃপক্ষের ভূমিকায় ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেছেন, তিনি আর ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতায় যোগ দিচ্ছেন না।

12.07.2019 | 07:33 PM | সর্বমোট ১২৮ বার পঠিত

ইউএসটিসিতে শিক্ষকের গায়ে কেরোসিন, ৪ জনের শাস্তি" data-width="100%" data-numposts="5" data-colorscheme="light">

জাতীয়

রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ভূকম্পন অনুভূত

আজ শুক্রবার বেলা সোয়া তিনটার ‍দিকে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ভূকম্পন অনুভূত হয়েছে। এর উৎপত্তিস্থল ছিল ভারতের অরুণাচল...... বিস্তারিত

19.07.2019 | 05:43 PM


রাজধানী

রাজধানীর শ্যামপুরে বিদেশি পিস্তল রিভলবার ম্যাগাজিন ও গুলিসহ গ্রেফতার ৩

রাজধানীর শ্যামপুরে অভিযান চালিয়ে ৪টি বিদেশি পিস্তল, ২টি বিদেশি রিভলবার, ৭টি ম্যাগাজিন ও ১২৮ রাউন্ড গুলিসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা...... বিস্তারিত

19.07.2019 | 05:51 PM

চট্টগ্রাম

হালদা দূষণের দায়ে বিদ্যুৎকেন্দ্রকে ২০ লাখ টাকা জরিমানা

ভারী বৃষ্টির মধ্যে বর্জ্য তেল নিঃসরণের মাধ্যমে প্রাকৃতিক মৎস্য প্রজনন ক্ষেত্র হালদা নদী দূষণের অভিযোগে চট্টগ্রামের হাটহাজারী ১০০ মেগাওয়াট পিকিং...... বিস্তারিত

17.07.2019 | 08:52 PM

ফেইসবুকে নিউজ ৭১ অনলাইন

ধর্ম

বিনোদন

নাইটক্লাবে শাহরুখ কন্যার ভিডিও ভাইরাল

এখনও বলিউডে পা রাখেননি। তাতে কি। বলিউড সুপারস্টার শাহরুখ খান কন্যা সুহানা খান নানাভাবে সংবাদের শিরোনাম হয়েছেন।শাহরুখ কন্যা বলেই তাকে...... বিস্তারিত

16.07.2019 | 08:25 PM

সর্বশেষ সংবাদ

সব পোস্ট

English News

সম্পাদকীয়

বিশেষ প্রতিবেদন

মানুষ মানুষের জন্য

আমরা শোকাহত

অতিথি কলাম

সাক্ষাৎকার

অন্যরকম

ভিডিওতে ৭১এর মুক্তিযোদ্ধের ইতিহাস

ভিডিও সংবাদ